শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, সকাল ৬:২০
শনিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩,সকাল ৬:২০

রাতে আর্জেন্টিনার অলিখিত ‘ফাইনাল’

কাতার ফুটলব বিশ্বকাপ ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক

৩০ নভেম্বর, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৯:২৯ pm

সৌদি আরবের কাছে অঘটনের পরাজয়ের পর মেক্সিকোর বিপক্ষে জিতে আশা বাঁচে আর্জেন্টিনার। মেসি ম্যাজিকে দুর্দান্ত সে জয়ের পর আলবিসেলেস্তে সমর্থকরা যখন উৎসবে মেতেছিল, খোদ মেসি থামিয়ে দিয়ে বলেছিলেন বুধবার আরেকটি ফাইনালের মুখোমুখি হতে হবে তাদের। মেক্সিকোর বিপক্ষে জয়টা আর্জেন্টিনাকে একটা লাইফলাইন এনে দিয়েছে সত্যি, কিন্তু পোল্যান্ডের বিপক্ষেও নামতে হচ্ছে সেই একই শঙ্কা নিয়ে। হেরে গেলেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায়।

বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে যাওয়ার মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে পোল্যান্ডের মুখোমুখি আর্জেন্টিনা। স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ ম্যাচটি শুরু হবে বুধবার (৩০ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায়।

পোল্যান্ডের বিপক্ষে নামার আগে একটা পরিসংখ্যান অবশ্য স্বস্তি দিচ্ছে আর্জেন্টিনাকে। ২০০২ সালের পর কখনোই বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে বাদ পড়েনি ১৯৭৮ ও  ১৯৮৬ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছিল লিওনেল মেসির দল।

আর্জেন্টিনার সমীকরণ

৩৬ বছরের সোনালি ট্রফির অপেক্ষা। নিজের শেষ বিশ্বকাপ খেলতে নেমেছেন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি। মরুর বুকে আলবিসেলেস্তেদের শিরোপাখরা রাঙানোর উপলক্ষ্য অনেক। প্রথম ম্যাচে হোঁচট খাওয়ায় শুরুতেই কিছুটা এলোমেলো। তবে ভাগ্য এখনো নিজেদের হাতেই আছে তাদের। গ্রুপপর্ব টপকাতে মেসিরা যদি কোনো জটিলতার মধ্যে না পড়তে চায়, তাহলে পোল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ই একমাত্র উপায়। মানে শেষ ষোলোর ভাগ্য এখনও তাদের হাতেই আছে। তবে হেরে গেলেই সর্বনাশ, আকাশী-সাদাদের বিদায় নিশ্চিত।

পোল্যান্ডের বিপক্ষে ড্র করলেও নকআউটে ওঠার সুযোগ থাকছে আর্জেন্টিনার। সেক্ষেত্রে তাদের পয়েন্ট হবে ৪। পোলিশদের সঙ্গে ড্র করে আর্জেন্টাইনরা কামনা করবে সৌদি আরব যেন মেক্সিকোকে না হারাতে পারে। যদি আর্জেন্টিনা ড্র করে এবং সৌদি আরব জেতে, তাহলে আর্জেন্টিনা বাদ। পোল্যান্ড ও সৌদি পাবে শেষ ষোলোর টিকিট।

যদি কোনোভাবে আর্জেন্টিনা এবং মেক্সিকো কিংবা সৌদি আরবের পয়েন্ট সমান হয় তাহলে প্রথমে গোল পার্থক্য, পরে গোলের হিসাব বিবেচনা করা হবে। সেক্ষেত্রে আর্জেন্টিনা ও সৌদি আরবের পয়েন্ট ৪ হলে আর্জেন্টাইনরা গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় চলে যাবে শেষ ষোলোতে। তবে আর্জেন্টিনার ড্রয়ের পর মেক্সিকো জিতে গেলে দুই দলের পয়েন্ট সমান ৪ হবে। সেক্ষেত্রে মেক্সিকানরা ১ বা দুই গোলে জিতলে আর্জেন্টাইনরা গ্রুপ পর্ব শেষ করবে দ্বিতীয় হয়ে এবং মেক্সিকো হবে তৃতীয়।

যদি মেক্সিকো তিন গোলে জেতে তাহলে গ্রুপ নির্ধারণ হবে গোল পার্থক্যের হিসাবে, সেটাতেও মীমাংসা না হলে গোলসংখ্যা বিবেচনা করা হবে। আর চার গোলে জিতলে মেক্সিকো আর্জেন্টিনাকে পেছনে ফেলে উঠে যাবে নকআউটে।

পরিসংখ্যানে আর্জেন্টিনা-পোল্যান্ড

নামের ভারে কিংবা সাফল্যে লিওনেল মেসির দল যোজন ব্যবধানে এগিয়ে লেভানদোভস্কির দলের চেয়ে। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে তৃতীয় স্থানে আছে আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপে সৌদি আরবের বিপক্ষে ম্যাচটি হারার আগে টানা ৩৬ ম্যাচ অজেয় ছিল আলবিসেলেস্তেরা। অন্যদিকে, পোল্যান্ড আছে র‍্যাঙ্কিংয়ের ২৬ নম্বরে।

মুখোমুখি লড়াইয়ের পরিসংখ্যানও আর্জেন্টিনার পক্ষে। ১৯৬৬ সালে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে প্রথমবারের মতো মুখোমুখি হয়েছিল দুদল। সেবারের দেখায় দুদলের ম্যাচটি শেষ হয়েছিল ১-১ গোলের সমতায়। সব মিলিয়ে ১১ বার মুখোমুখি হয়ে আর্জেন্টিনা জয় পেয়েছে মোট ৬ ম্যাচে। ৩ ম্যাচে জয় পেয়েছে পোল্যান্ড। বাকি দুই ম্যাচে জয় পায়নি কেউই।

বিশ্বকাপের মঞ্চে অবশ্য লড়াইটা হয়েছে সমানে সমান। ১৯৭৪ বিশ্বকাপে প্রথমবারের দেখায় পোল্যান্ড ৩-২ গোলে হারিয়েছিল আর্জেন্টিনাকে। ১৯৭৮ বিশ্বকাপেই ফের দেখা হয় দুদলের। এবার ২-০ গোলে পোলিশদের হারিয়ে প্রতিশোধ নেয় আর্জেন্টিনা। দুদলের মুখোমুখি লড়াইয়ে গোল করার দিক দিয়েও এগিয়ে আর্জেন্টিনা। এ ১১ ম্যাচে আর্জেন্টিনা গোল করেছে ১৮টি এবং হজম করেছে ১২টি।

তবে, পোল্যান্ডের জন্য ইতিবাচক হতে পারে একটি বিষয়। দুদলের সবশেষ লড়াইয়ে জয় পেয়েছিল পোলিশরাই। ২০১১ সালে সে দেখায় অবশ্য আর্জেন্টিনা মাঠে নেমেছিল দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে। আদ্রিয়ান মিয়েরজেজেভস্কি ও পাওয়েল ব্রোজেকের গোলে ২-১ ব্যবধানে আর্জেন্টিনাকে হারিয়েছিল তারা। আর্জেন্টিনার হয়ে একমাত্র গোলটি করেন মার্কো রুবেন।

আর্জেন্টিনার সম্ভাব্য একাদশ

আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টস আভাস পেয়েছে দুটি পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে শুরুর একাদশে। গঞ্জালো মন্টিয়েলের বদলে শুরু করবেন নাহুয়েল মলিনা। এছাড়া লিয়ান্দ্রো পারেদেসকে দেখা যাবে না শুরুর একাদশে, তার জায়গা নেবেন এনজো ফার্নান্দেজ কিংবা গুইদো রদ্রিগেজ। গুইদো মেক্সিকোর বিপক্ষে শুরুর একাদশে ছিলেন, এনজো বদলি নেমে করেন দ্বিতীয় গোল।

এমিলিয়ানো মার্তিনেজ; নাহুয়েল মলিনা, নিকোলাস ওতামেন্দি, লিসান্দ্রো মার্তিনেজ, মার্কোস আকুনা; রদ্রিগো ডি পল, এনজো ফার্নান্দেজ/গুইদো রদ্রিগেজ, অ্যালেক্সিস ম্যাচ অ্যালিস্টার, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, লাউতারো মার্তিনেজ ও লিওনেল মেসি।

Related Posts

রাতে আর্জেন্টিনার অলিখিত ‘ফাইনাল’

কাতার ফুটলব বিশ্বকাপ ২০২২

স্পোর্টস ডেস্ক

৩০ নভেম্বর, ২০২২,

৯:২৯ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

সৌদি আরবের কাছে অঘটনের পরাজয়ের পর মেক্সিকোর বিপক্ষে জিতে আশা বাঁচে আর্জেন্টিনার। মেসি ম্যাজিকে দুর্দান্ত সে জয়ের পর আলবিসেলেস্তে সমর্থকরা যখন উৎসবে মেতেছিল, খোদ মেসি থামিয়ে দিয়ে বলেছিলেন বুধবার আরেকটি ফাইনালের মুখোমুখি হতে হবে তাদের। মেক্সিকোর বিপক্ষে জয়টা আর্জেন্টিনাকে একটা লাইফলাইন এনে দিয়েছে সত্যি, কিন্তু পোল্যান্ডের বিপক্ষেও নামতে হচ্ছে সেই একই শঙ্কা নিয়ে। হেরে গেলেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায়।

বিশ্বকাপের নকআউট পর্বে যাওয়ার মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে পোল্যান্ডের মুখোমুখি আর্জেন্টিনা। স্টেডিয়াম ৯৭৪-এ ম্যাচটি শুরু হবে বুধবার (৩০ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায়।

পোল্যান্ডের বিপক্ষে নামার আগে একটা পরিসংখ্যান অবশ্য স্বস্তি দিচ্ছে আর্জেন্টিনাকে। ২০০২ সালের পর কখনোই বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে বাদ পড়েনি ১৯৭৮ ও  ১৯৮৬ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা। ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছিল লিওনেল মেসির দল।

আর্জেন্টিনার সমীকরণ

৩৬ বছরের সোনালি ট্রফির অপেক্ষা। নিজের শেষ বিশ্বকাপ খেলতে নেমেছেন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি। মরুর বুকে আলবিসেলেস্তেদের শিরোপাখরা রাঙানোর উপলক্ষ্য অনেক। প্রথম ম্যাচে হোঁচট খাওয়ায় শুরুতেই কিছুটা এলোমেলো। তবে ভাগ্য এখনো নিজেদের হাতেই আছে তাদের। গ্রুপপর্ব টপকাতে মেসিরা যদি কোনো জটিলতার মধ্যে না পড়তে চায়, তাহলে পোল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ই একমাত্র উপায়। মানে শেষ ষোলোর ভাগ্য এখনও তাদের হাতেই আছে। তবে হেরে গেলেই সর্বনাশ, আকাশী-সাদাদের বিদায় নিশ্চিত।

পোল্যান্ডের বিপক্ষে ড্র করলেও নকআউটে ওঠার সুযোগ থাকছে আর্জেন্টিনার। সেক্ষেত্রে তাদের পয়েন্ট হবে ৪। পোলিশদের সঙ্গে ড্র করে আর্জেন্টাইনরা কামনা করবে সৌদি আরব যেন মেক্সিকোকে না হারাতে পারে। যদি আর্জেন্টিনা ড্র করে এবং সৌদি আরব জেতে, তাহলে আর্জেন্টিনা বাদ। পোল্যান্ড ও সৌদি পাবে শেষ ষোলোর টিকিট।

যদি কোনোভাবে আর্জেন্টিনা এবং মেক্সিকো কিংবা সৌদি আরবের পয়েন্ট সমান হয় তাহলে প্রথমে গোল পার্থক্য, পরে গোলের হিসাব বিবেচনা করা হবে। সেক্ষেত্রে আর্জেন্টিনা ও সৌদি আরবের পয়েন্ট ৪ হলে আর্জেন্টাইনরা গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় চলে যাবে শেষ ষোলোতে। তবে আর্জেন্টিনার ড্রয়ের পর মেক্সিকো জিতে গেলে দুই দলের পয়েন্ট সমান ৪ হবে। সেক্ষেত্রে মেক্সিকানরা ১ বা দুই গোলে জিতলে আর্জেন্টাইনরা গ্রুপ পর্ব শেষ করবে দ্বিতীয় হয়ে এবং মেক্সিকো হবে তৃতীয়।

যদি মেক্সিকো তিন গোলে জেতে তাহলে গ্রুপ নির্ধারণ হবে গোল পার্থক্যের হিসাবে, সেটাতেও মীমাংসা না হলে গোলসংখ্যা বিবেচনা করা হবে। আর চার গোলে জিতলে মেক্সিকো আর্জেন্টিনাকে পেছনে ফেলে উঠে যাবে নকআউটে।

পরিসংখ্যানে আর্জেন্টিনা-পোল্যান্ড

নামের ভারে কিংবা সাফল্যে লিওনেল মেসির দল যোজন ব্যবধানে এগিয়ে লেভানদোভস্কির দলের চেয়ে। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে তৃতীয় স্থানে আছে আর্জেন্টিনা। বিশ্বকাপে সৌদি আরবের বিপক্ষে ম্যাচটি হারার আগে টানা ৩৬ ম্যাচ অজেয় ছিল আলবিসেলেস্তেরা। অন্যদিকে, পোল্যান্ড আছে র‍্যাঙ্কিংয়ের ২৬ নম্বরে।

মুখোমুখি লড়াইয়ের পরিসংখ্যানও আর্জেন্টিনার পক্ষে। ১৯৬৬ সালে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে প্রথমবারের মতো মুখোমুখি হয়েছিল দুদল। সেবারের দেখায় দুদলের ম্যাচটি শেষ হয়েছিল ১-১ গোলের সমতায়। সব মিলিয়ে ১১ বার মুখোমুখি হয়ে আর্জেন্টিনা জয় পেয়েছে মোট ৬ ম্যাচে। ৩ ম্যাচে জয় পেয়েছে পোল্যান্ড। বাকি দুই ম্যাচে জয় পায়নি কেউই।

বিশ্বকাপের মঞ্চে অবশ্য লড়াইটা হয়েছে সমানে সমান। ১৯৭৪ বিশ্বকাপে প্রথমবারের দেখায় পোল্যান্ড ৩-২ গোলে হারিয়েছিল আর্জেন্টিনাকে। ১৯৭৮ বিশ্বকাপেই ফের দেখা হয় দুদলের। এবার ২-০ গোলে পোলিশদের হারিয়ে প্রতিশোধ নেয় আর্জেন্টিনা। দুদলের মুখোমুখি লড়াইয়ে গোল করার দিক দিয়েও এগিয়ে আর্জেন্টিনা। এ ১১ ম্যাচে আর্জেন্টিনা গোল করেছে ১৮টি এবং হজম করেছে ১২টি।

তবে, পোল্যান্ডের জন্য ইতিবাচক হতে পারে একটি বিষয়। দুদলের সবশেষ লড়াইয়ে জয় পেয়েছিল পোলিশরাই। ২০১১ সালে সে দেখায় অবশ্য আর্জেন্টিনা মাঠে নেমেছিল দ্বিতীয় সারির দল নিয়ে। আদ্রিয়ান মিয়েরজেজেভস্কি ও পাওয়েল ব্রোজেকের গোলে ২-১ ব্যবধানে আর্জেন্টিনাকে হারিয়েছিল তারা। আর্জেন্টিনার হয়ে একমাত্র গোলটি করেন মার্কো রুবেন।

আর্জেন্টিনার সম্ভাব্য একাদশ

আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম টিওয়াইসি স্পোর্টস আভাস পেয়েছে দুটি পরিবর্তন আসতে যাচ্ছে শুরুর একাদশে। গঞ্জালো মন্টিয়েলের বদলে শুরু করবেন নাহুয়েল মলিনা। এছাড়া লিয়ান্দ্রো পারেদেসকে দেখা যাবে না শুরুর একাদশে, তার জায়গা নেবেন এনজো ফার্নান্দেজ কিংবা গুইদো রদ্রিগেজ। গুইদো মেক্সিকোর বিপক্ষে শুরুর একাদশে ছিলেন, এনজো বদলি নেমে করেন দ্বিতীয় গোল।

এমিলিয়ানো মার্তিনেজ; নাহুয়েল মলিনা, নিকোলাস ওতামেন্দি, লিসান্দ্রো মার্তিনেজ, মার্কোস আকুনা; রদ্রিগো ডি পল, এনজো ফার্নান্দেজ/গুইদো রদ্রিগেজ, অ্যালেক্সিস ম্যাচ অ্যালিস্টার, অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া, লাউতারো মার্তিনেজ ও লিওনেল মেসি।

Related Posts