মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, বিকাল ৪:০৯
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২,বিকাল ৪:০৯

ভাইপোর দায়ের কোপে চাচা জখম

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি 

৩১ অক্টোবর, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৯:১৭ pm

যশোরের মনিরামপুরে খেজুর গাছ তোলা নিয়ে বিরোধের জেরে ভাইপোর এলোপাতাড়ি দার কোপে গুরুত্বর আহত হয়েছেন আলী বক্স নামে এক কৃষক (৫৫)।

সোমবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার চালুয়াহাটি ইউনিয়নের শয়লা গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। এ সময় বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুত্বর আহত হয়েছেন আলী বক্সের ছেলে আব্দুল্লাহ।আহত বাবা ও ছেলেকে খুলনায় রেফার করা হয়েছে। হামলাকারীরা আলীবক্সের চাচাত ভাই ও ভাইপো। এ ঘটনার পর থেকে তাঁরা বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন।

আলী বক্সের ভাগনে হাসান আল-মামুন বলেন, এদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আমার চাচাতো মামা বিল্লাল দফাদার লোক নিয়ে খেজুর গাছ তোলাচ্ছিলেন (রস সংগ্রহের জন্য পুস্তুত করা)। সেখানে পাশে আমার আপন মামা আলী বক্সের ধানের জমি। খেজুর গাছ থেকে কেটে দেওয়া পাতা আমার মামা আলী বক্সের ধান খেতে পড়ছিল। ওই সময় মামা এগিয়ে গিয়ে ক’দিন পরে ধান উঠলে গাছ তোলার জন্য বলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিল্লাল মামার ছেলে রাজু গাছি দা (খেজুর গাছ তোলার কাজে ব্যবহৃত) দিয়ে আমার মামা আলী বক্সকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে মামার বাম পা হাঁটুর উপর থেকে প্রায় ছিন্ন হয়ে গেছে। মামার দু হাত ও পিঠে কোপ লেগেছে।
হাসান আল মামুন আরো বলেন, রাজু, তাঁর ছোট ভাই মেহেদী ও তাঁর বাবা বিল্লাল হোসেন মিলে হামলা করেছে। এ সময় বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে ছেলে আব্দুল্লাহ গুরুত্বর আহত হয়েছেন।

হাসান আল মামুন বলেন, আহত বাবা ও ছেলেকে উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে চিকিৎসক তাঁদের খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে রেফার করেছেন। চালুয়াহাটি ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবুল হাসান হামলার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে মনিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামানকে একাধিকবার কল করা হয়েছে। তিনি ফোন ধরেননি।

Related Posts

ভাইপোর দায়ের কোপে চাচা জখম

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি 

৩১ অক্টোবর, ২০২২,

৯:১৭ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

যশোরের মনিরামপুরে খেজুর গাছ তোলা নিয়ে বিরোধের জেরে ভাইপোর এলোপাতাড়ি দার কোপে গুরুত্বর আহত হয়েছেন আলী বক্স নামে এক কৃষক (৫৫)।

সোমবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার চালুয়াহাটি ইউনিয়নের শয়লা গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। এ সময় বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুত্বর আহত হয়েছেন আলী বক্সের ছেলে আব্দুল্লাহ।আহত বাবা ও ছেলেকে খুলনায় রেফার করা হয়েছে। হামলাকারীরা আলীবক্সের চাচাত ভাই ও ভাইপো। এ ঘটনার পর থেকে তাঁরা বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন।

আলী বক্সের ভাগনে হাসান আল-মামুন বলেন, এদিন দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আমার চাচাতো মামা বিল্লাল দফাদার লোক নিয়ে খেজুর গাছ তোলাচ্ছিলেন (রস সংগ্রহের জন্য পুস্তুত করা)। সেখানে পাশে আমার আপন মামা আলী বক্সের ধানের জমি। খেজুর গাছ থেকে কেটে দেওয়া পাতা আমার মামা আলী বক্সের ধান খেতে পড়ছিল। ওই সময় মামা এগিয়ে গিয়ে ক’দিন পরে ধান উঠলে গাছ তোলার জন্য বলেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিল্লাল মামার ছেলে রাজু গাছি দা (খেজুর গাছ তোলার কাজে ব্যবহৃত) দিয়ে আমার মামা আলী বক্সকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে মামার বাম পা হাঁটুর উপর থেকে প্রায় ছিন্ন হয়ে গেছে। মামার দু হাত ও পিঠে কোপ লেগেছে।
হাসান আল মামুন আরো বলেন, রাজু, তাঁর ছোট ভাই মেহেদী ও তাঁর বাবা বিল্লাল হোসেন মিলে হামলা করেছে। এ সময় বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে ছেলে আব্দুল্লাহ গুরুত্বর আহত হয়েছেন।

হাসান আল মামুন বলেন, আহত বাবা ও ছেলেকে উদ্ধার করে কেশবপুর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে চিকিৎসক তাঁদের খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে রেফার করেছেন। চালুয়াহাটি ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আবুল হাসান হামলার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে জানতে মনিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামানকে একাধিকবার কল করা হয়েছে। তিনি ফোন ধরেননি।

Related Posts