রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, সকাল ৭:৪০
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২,সকাল ৭:৪০

টেবিল ফ্যান চালাতে গিয়ে বিদ্যুতে প্রাণ গেল গৃহবধূর

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা (বাগেরহাট)

১১ অক্টোবর, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৪:১৭ pm

বাগেরহাটের শরণখোলায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মরিয়ম বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূ মারা গেছেন। নিজ ঘরের টেবিল ফ্যানের প্লাগ লাগাতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হন তিনি। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

মঙ্গলবার (১১ অক্টোবর) সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের মধ্যে নলবুনিয়া গ্রামে ঘটে এ ঘটনা। নিহত মরিয়ম বেগম ওই গ্রামের মাহামুদুর রহমানের স্ত্রী। তিনি ঢাকার একটি হাফেজি মাদরাসায় চাকরি করেন।

নিহতের চাচা সাইদুর রহমান জানান, সকালে মরিয়ম টেবিল ফ্যান চালানোর জন্য প্লাগ লাতাতে যান। প্লাগের গোড়ার তার লিক থাকায় সকেটে ঢোকানোমাত্রই তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। এসময় পরিবার ও প্রতিবেশী লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত মরিয়ম বেগম তিন সন্তানের জননী।

শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. সাহানা রহমান জানান, হাসপাতালে আনার আগেই মরিয়ম বেগম মারা গেছেন।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকরাম হোসেন জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহতের ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

Related Posts

টেবিল ফ্যান চালাতে গিয়ে বিদ্যুতে প্রাণ গেল গৃহবধূর

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা (বাগেরহাট)

১১ অক্টোবর, ২০২২,

৪:১৭ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

বাগেরহাটের শরণখোলায় বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হয়ে মরিয়ম বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূ মারা গেছেন। নিজ ঘরের টেবিল ফ্যানের প্লাগ লাগাতে গিয়ে বিদ্যুতায়িত হন তিনি। পরে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

মঙ্গলবার (১১ অক্টোবর) সকাল ১০ টার দিকে উপজেলার খোন্তাকাটা ইউনিয়নের মধ্যে নলবুনিয়া গ্রামে ঘটে এ ঘটনা। নিহত মরিয়ম বেগম ওই গ্রামের মাহামুদুর রহমানের স্ত্রী। তিনি ঢাকার একটি হাফেজি মাদরাসায় চাকরি করেন।

নিহতের চাচা সাইদুর রহমান জানান, সকালে মরিয়ম টেবিল ফ্যান চালানোর জন্য প্লাগ লাতাতে যান। প্লাগের গোড়ার তার লিক থাকায় সকেটে ঢোকানোমাত্রই তাকে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। এসময় পরিবার ও প্রতিবেশী লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহত মরিয়ম বেগম তিন সন্তানের জননী।

শরণখোলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. সাহানা রহমান জানান, হাসপাতালে আনার আগেই মরিয়ম বেগম মারা গেছেন।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকরাম হোসেন জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহতের ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

Related Posts