রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, সকাল ৭:০২
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২,সকাল ৭:০২

বিয়ে বাড়িতে বিষাদ!

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি 

১০ অক্টোবর, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৮:৩৬ pm

যশোরের মনিরামপুরে আনিশা খাতুন নামে ২ বছর বয়সী একটি শিশুর পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে।সোমবার (১০ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

আনিশা যখন পানিতে ডুবছিল তখন বাড়ির সবাই বরযাত্রী যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। আনিশার কাকার এদিন বিয়ে ছিল। তার মৃত্যুতে বিয়ের আনন্দ পরিবারটির কাছে বিষাদে পরিণত হয়েছে।
শিশুটি গোবিন্দপুর গ্রামের তহিদুল ইসলামের মেয়ে। বাবা মায়ের একমাত্র মেয়ে সে।

নিহত শিশুর চাচি হালিমা বেগম বলেন, ‘আমার দেবর সাহিদুল বহুদিন পর বিদেশ থেকে ফিরেছেন। আমরা তাঁর খুলনা ফুলতলায় বিয়ে ঠিক করেছি। সোমবার সকালে বাড়ির সবাই বরযাত্রী যাওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছিল। আনিশাকে সাথে নেওয়ার জন্য ওর মা নতুন জামা পরিয়েছিলেন। সে জামা খুলে কোন এক ফাঁকে পুকুরে নেমে পড়ে সে’।

হালিমা বেগম বলেন, সবাই যখন মাইক্রোবাসে উঠবে তখন আনিশাকে পাওয়া যাচ্ছিল না। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বাড়ির পুকুরে ডুবন্ত অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়। এরপর শিশুটিকে উদ্ধার করে মনিরামপুর হাসপাতালে আনা হয়। তখন ডাক্তার আনিশাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মনিরামপুর হাসপাতালের প্রধান তন্ময় বিশ্বাস বলেন, হাসপাতালে আনার পর আমরা শিশুটিকে মৃত অবস্থায় পেয়েছি। এরপর বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

মনিরামপুর থানার ইনচার্জ (ওসি) নূর-ই-আলম সিদ্দীকি বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কোন অভিযোগ না থাকায় লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছি।

এদিকে আনিশার মৃত্যুর ঘটনায় তাৎক্ষণিক তার চাচার বিয়ে বন্ধ হয়ে গেছে।
শিশুটির বাবা তহিদুল ইসলাম বলেন, উপস্থিত বিয়ের কাজ বন্ধ করা হয়েছে। আমরা মেয়ের মৃত্যুর বিষয়টি তাঁদের জানিয়ে দিয়েছি।

Related Posts

বিয়ে বাড়িতে বিষাদ!

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি 

১০ অক্টোবর, ২০২২,

৮:৩৬ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

যশোরের মনিরামপুরে আনিশা খাতুন নামে ২ বছর বয়সী একটি শিশুর পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে।সোমবার (১০ অক্টোবর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।

আনিশা যখন পানিতে ডুবছিল তখন বাড়ির সবাই বরযাত্রী যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল। আনিশার কাকার এদিন বিয়ে ছিল। তার মৃত্যুতে বিয়ের আনন্দ পরিবারটির কাছে বিষাদে পরিণত হয়েছে।
শিশুটি গোবিন্দপুর গ্রামের তহিদুল ইসলামের মেয়ে। বাবা মায়ের একমাত্র মেয়ে সে।

নিহত শিশুর চাচি হালিমা বেগম বলেন, ‘আমার দেবর সাহিদুল বহুদিন পর বিদেশ থেকে ফিরেছেন। আমরা তাঁর খুলনা ফুলতলায় বিয়ে ঠিক করেছি। সোমবার সকালে বাড়ির সবাই বরযাত্রী যাওয়ার জন্য তৈরি হচ্ছিল। আনিশাকে সাথে নেওয়ার জন্য ওর মা নতুন জামা পরিয়েছিলেন। সে জামা খুলে কোন এক ফাঁকে পুকুরে নেমে পড়ে সে’।

হালিমা বেগম বলেন, সবাই যখন মাইক্রোবাসে উঠবে তখন আনিশাকে পাওয়া যাচ্ছিল না। খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে বাড়ির পুকুরে ডুবন্ত অবস্থায় তাকে পাওয়া যায়। এরপর শিশুটিকে উদ্ধার করে মনিরামপুর হাসপাতালে আনা হয়। তখন ডাক্তার আনিশাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মনিরামপুর হাসপাতালের প্রধান তন্ময় বিশ্বাস বলেন, হাসপাতালে আনার পর আমরা শিশুটিকে মৃত অবস্থায় পেয়েছি। এরপর বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

মনিরামপুর থানার ইনচার্জ (ওসি) নূর-ই-আলম সিদ্দীকি বলেন, এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কোন অভিযোগ না থাকায় লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছি।

এদিকে আনিশার মৃত্যুর ঘটনায় তাৎক্ষণিক তার চাচার বিয়ে বন্ধ হয়ে গেছে।
শিশুটির বাবা তহিদুল ইসলাম বলেন, উপস্থিত বিয়ের কাজ বন্ধ করা হয়েছে। আমরা মেয়ের মৃত্যুর বিষয়টি তাঁদের জানিয়ে দিয়েছি।

Related Posts