মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, বিকাল ৪:৪১
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২,বিকাল ৪:৪১

মা ফোন কেড়ে নেওয়ায় স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি 

৮ অক্টোবর, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৭:০৬ pm

যশোরের মনিরামপুরে মায়ের উপর অভিমান করে কীটনাশক (গ্যাস ট্যাবলেট) খেয়ে আম্বিয়া খাতুন (১৬) নামে এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।

শুক্রবার (৭ অক্টোবর) দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
আম্বিয়া উপজেলার খড়িঞ্চি উত্তর পাড়ার হাফিজুর রহমানের মেয়ে। সে জালালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

খেদাপাড়া ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) সমেন বিশ্বাস বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় বই রেখে মোবাইল দেখছিলো আম্বিয়া। এটা দেখে মা জোহরা খাতুন মেয়ের হাত থেকে ফোন কেড়ে নিয়ে বকাঝকা করেন। এতে অভিমান করে রাত সাড়ে ৭টার দিকে বাড়িতে রাখা গ্যাস ট্যাবলেট খায় আম্বিয়া। টের পেয়ে স্বজনরা তাকে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে রেফার করেন চিকিৎসক। খুলনায় নেওয়ার পথে শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মারা যায় আম্বিয়া।

এসআই সমেন বলেন, এ ঘটনায় শনিবার (৮ অক্টোবর) সকালে মনিরামপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কোন অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়া মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

Related Posts

মা ফোন কেড়ে নেওয়ায় স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা

মনিরামপুর (যশোর) প্রতিনিধি 

৮ অক্টোবর, ২০২২,

৭:০৬ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

যশোরের মনিরামপুরে মায়ের উপর অভিমান করে কীটনাশক (গ্যাস ট্যাবলেট) খেয়ে আম্বিয়া খাতুন (১৬) নামে এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।

শুক্রবার (৭ অক্টোবর) দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।
আম্বিয়া উপজেলার খড়িঞ্চি উত্তর পাড়ার হাফিজুর রহমানের মেয়ে। সে জালালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

খেদাপাড়া ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) সমেন বিশ্বাস বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় বই রেখে মোবাইল দেখছিলো আম্বিয়া। এটা দেখে মা জোহরা খাতুন মেয়ের হাত থেকে ফোন কেড়ে নিয়ে বকাঝকা করেন। এতে অভিমান করে রাত সাড়ে ৭টার দিকে বাড়িতে রাখা গ্যাস ট্যাবলেট খায় আম্বিয়া। টের পেয়ে স্বজনরা তাকে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা ২৫০ শয্যা হাসপাতালে রেফার করেন চিকিৎসক। খুলনায় নেওয়ার পথে শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মারা যায় আম্বিয়া।

এসআই সমেন বলেন, এ ঘটনায় শনিবার (৮ অক্টোবর) সকালে মনিরামপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। কোন অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়া মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

Related Posts