মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, বিকাল ৫:৩১
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২,বিকাল ৫:৩১

সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা, আটক ১

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা

১৮ জুলাই, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৭:০৪ pm

বাগেরহাটের শরণখোলায় সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মহারাজ খলিফা (২৫) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১৮ জুলাই) বিকেল পৌনে ৫টার দিকে খোন্তাকাটা ইউনিয়নের মঠেরপাড় গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক মহারাজ ওই গ্রামের জলিল খলিফার ছেলে।

এর আগে রোববার বিকেল ৫টার দিকে মহারাজের বাড়িতেই এই ঘটনা ঘটে। ভিকটিম শিশুটি ১০নম্বর মঠেরপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার বিকেলে শিশুটি হাটতে হাটতে প্রতিবেশী মহারাজের বাড়িতে যায়। তখন বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিশুটিকে বসতঘরের পেছনে রান্না ঘরে নিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় মহারাজ। এ সময় রাহেলা বেগম নামে এক প্রতিবেশী রান্না ঘরের পাশ থেকে যাওয়ার সময় ঘটনাটি তার নজরে পড়লে শিশুটিকে ছেড়ে দেয় ওই যুবক। শিশুটিও রাতে বিষয়টি তার মাকে জানায়।

ভুক্তভোগী শিশুর মা বলেন, মেয়ের কাছ থেকে ঘটনা শুনে সকালে স্কুলে গিয়ে শিক্ষকদের এবং সাবেক মেম্বর শহিদুল ইসলামকে জানাই। তারা পুলিশকে খবর দেন। এই ঘটনার মাস তিনেক আগে আমার ১০ বছরের প্রতিবন্ধী মেয়েকেও ধর্ষণের চেষ্টা করেছিল এই মহারাজ। এ সময় তার মা-বাবা হাতেপায়ে ধরে ক্ষমা চাওয়ায় রক্ষা পায় সে।

স্থানীয় বাসিন্দা রফিক খলিফা, আবুল খলিফাসহ অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, মহারাজ খুবই বাজে এবং বিকৃত মানসিকতার ছেলে। তার কারণে গ্রামের নারী এবং মেয়েরা সবর্দা আতঙ্কে থাকে। তারা গোসল করতে গেলে গোসলখানার পাশে, খালের পাড়ে ওঁৎ পেতে থাকে মহারাজ। নানা রকম উত্তেজনামূলক অঙ্গভঙ্গি করতে থাকে। এছাড়া সে মাদক সেবন ও কারবারের সঙ্গেও জড়িত। কয়েকমাস আগে সে মাদকের মামলায় জেল থেকে বেরিয়েছে। এই বখাটের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন গ্রামের নারী-পুরুষ সবাই।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকরাম হোসেন জানান, শিশু ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিক মহারাজকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে। মামলা রেকর্ড হলে ভুক্তভোগী শিশুর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বাগেরহাট পাঠানো হবে।

Related Posts

সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা, আটক ১

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা

১৮ জুলাই, ২০২২,

৭:০৪ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

বাগেরহাটের শরণখোলায় সাত বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মহারাজ খলিফা (২৫) নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (১৮ জুলাই) বিকেল পৌনে ৫টার দিকে খোন্তাকাটা ইউনিয়নের মঠেরপাড় গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক মহারাজ ওই গ্রামের জলিল খলিফার ছেলে।

এর আগে রোববার বিকেল ৫টার দিকে মহারাজের বাড়িতেই এই ঘটনা ঘটে। ভিকটিম শিশুটি ১০নম্বর মঠেরপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার বিকেলে শিশুটি হাটতে হাটতে প্রতিবেশী মহারাজের বাড়িতে যায়। তখন বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিশুটিকে বসতঘরের পেছনে রান্না ঘরে নিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় মহারাজ। এ সময় রাহেলা বেগম নামে এক প্রতিবেশী রান্না ঘরের পাশ থেকে যাওয়ার সময় ঘটনাটি তার নজরে পড়লে শিশুটিকে ছেড়ে দেয় ওই যুবক। শিশুটিও রাতে বিষয়টি তার মাকে জানায়।

ভুক্তভোগী শিশুর মা বলেন, মেয়ের কাছ থেকে ঘটনা শুনে সকালে স্কুলে গিয়ে শিক্ষকদের এবং সাবেক মেম্বর শহিদুল ইসলামকে জানাই। তারা পুলিশকে খবর দেন। এই ঘটনার মাস তিনেক আগে আমার ১০ বছরের প্রতিবন্ধী মেয়েকেও ধর্ষণের চেষ্টা করেছিল এই মহারাজ। এ সময় তার মা-বাবা হাতেপায়ে ধরে ক্ষমা চাওয়ায় রক্ষা পায় সে।

স্থানীয় বাসিন্দা রফিক খলিফা, আবুল খলিফাসহ অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, মহারাজ খুবই বাজে এবং বিকৃত মানসিকতার ছেলে। তার কারণে গ্রামের নারী এবং মেয়েরা সবর্দা আতঙ্কে থাকে। তারা গোসল করতে গেলে গোসলখানার পাশে, খালের পাড়ে ওঁৎ পেতে থাকে মহারাজ। নানা রকম উত্তেজনামূলক অঙ্গভঙ্গি করতে থাকে। এছাড়া সে মাদক সেবন ও কারবারের সঙ্গেও জড়িত। কয়েকমাস আগে সে মাদকের মামলায় জেল থেকে বেরিয়েছে। এই বখাটের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন গ্রামের নারী-পুরুষ সবাই।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকরাম হোসেন জানান, শিশু ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিক মহারাজকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে। মামলা রেকর্ড হলে ভুক্তভোগী শিশুর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বাগেরহাট পাঠানো হবে।

Related Posts