শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২, সন্ধ্যা ৬:১২
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২,সন্ধ্যা ৬:১২

বনে ফিরল অজগর, আহত হরিণ চিকিৎসাধীন

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা

১৭ জুলাই, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৭:১৮ pm

বাগেরহাটের শরণখোলার লোকালয় থেকে একটি হরিণ ও একটি অজগর সাপ উদ্ধার হয়েছে। রোববার (১৭ জুলাই) উপজেলা সাউখালী ইউনিয়নের সোনাতলা গ্রাম থেকে বণ্য প্রাণী দুটি উদ্ধার করা হয়। স্ত্রী হরিণটি অন্তসত্বা হওয়ায় তাড়া খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং তার বাম চোখে আঘাতপ্রাপ্ত হয়। অসুস্থ হরিণটি শরণখোলা রেঞ্জ অফিসে রেখে প্রাণী সম্পদ বিভাগের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎ চলছে। তবে উদ্ধার হওয়া অজগরটি বনে অবমুক্ত করা হয়েছে বলে বনবিভাগ ও উদ্ধারকারীরা জানিয়েছে।

ওয়াইল্ড টিমের মাঠ কর্মকর্তা আলম হাওলাদার জানান, বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উত্তর সোনাতলা গ্রামের ছগির ঘরামীর বাড়ির পাশে হরিণটি ঘোরাঘুরি করতে দেখে লোকজন। পরে খবর পেয়ে ভিটিআরটি, সিপিজি ও বাঘবন্ধু দলের সদস্যরা গ্রামবাসীর সহায়তায় হরিণটি ধাওয়া করে ধরে বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করে। স্ত্রী হরিণটি অন্তসত্বা এবং ধাওয়া খেয়ে কিছুটা আহত হয়েছে।

অপরদিকে, সকাল ৯টায় সোনাতলা গ্রামের জাহাঙ্গীর হাওলাদারের মুরগির খোপ থেকে একটি অজগর সাপ উদ্ধার হয়েছে। সাপটি একটি হাঁস খেয়ে খোপেই অবস্থান করছি। পরে ভিটিআরটি ও ওয়াইল্ড টিমের সদস্য অজগরটি ধরে ভোলা টহল ফাঁড়ির বনরক্ষীদের কাছে হস্তান্তর করেন।

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা স্টেশন কর্মকর্তা (এসও) আসাদুজ্জামান জানান, হরিণটি সুন্দরবনের ঢালিরঘোপ এলাকা থেকে দিনের কোনো এক সময় ভোলা নদী সাঁতরে পাশের গ্রামে ঢুকে পড়ে। বিকেলে লোকজন দেখে স্থানীয় বনসুরক্ষা কমিটির সদস্যদের খবর দিলে তারা সেটি উদ্ধার করেন।

এসও আসাদুজ্জামান জানান, হরিণটির পেটে বাচ্চা আছে। তাই ধাওয়া খেয়ে কিছুটা ক্লান্ত। তার বাম চোখে সামান্য আঘাতের চিহ্ন আছে। অসুস্থ হরিণটি রেঞ্জ অফিসে রাখা হয়েছে। উপজেলা প্রাণি সম্পদ বিভাগের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়া সকালে উদ্ধার হওয়া অজগরটিও ভোলা ক্যাম্পের বনে অবমুক্ত করা হয়েছে। অজগরটি ৯ ফুট লম্বা এবং প্রায় ১২ ওজন বলে জানান বন বিভাগের এই কর্মকর্তা।

Related Posts

বনে ফিরল অজগর, আহত হরিণ চিকিৎসাধীন

মহিদুল ইসলাম, শরণখোলা

১৭ জুলাই, ২০২২,

৭:১৮ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

বাগেরহাটের শরণখোলার লোকালয় থেকে একটি হরিণ ও একটি অজগর সাপ উদ্ধার হয়েছে। রোববার (১৭ জুলাই) উপজেলা সাউখালী ইউনিয়নের সোনাতলা গ্রাম থেকে বণ্য প্রাণী দুটি উদ্ধার করা হয়। স্ত্রী হরিণটি অন্তসত্বা হওয়ায় তাড়া খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং তার বাম চোখে আঘাতপ্রাপ্ত হয়। অসুস্থ হরিণটি শরণখোলা রেঞ্জ অফিসে রেখে প্রাণী সম্পদ বিভাগের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎ চলছে। তবে উদ্ধার হওয়া অজগরটি বনে অবমুক্ত করা হয়েছে বলে বনবিভাগ ও উদ্ধারকারীরা জানিয়েছে।

ওয়াইল্ড টিমের মাঠ কর্মকর্তা আলম হাওলাদার জানান, বিকেল সোয়া ৪টার দিকে উত্তর সোনাতলা গ্রামের ছগির ঘরামীর বাড়ির পাশে হরিণটি ঘোরাঘুরি করতে দেখে লোকজন। পরে খবর পেয়ে ভিটিআরটি, সিপিজি ও বাঘবন্ধু দলের সদস্যরা গ্রামবাসীর সহায়তায় হরিণটি ধাওয়া করে ধরে বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করে। স্ত্রী হরিণটি অন্তসত্বা এবং ধাওয়া খেয়ে কিছুটা আহত হয়েছে।

অপরদিকে, সকাল ৯টায় সোনাতলা গ্রামের জাহাঙ্গীর হাওলাদারের মুরগির খোপ থেকে একটি অজগর সাপ উদ্ধার হয়েছে। সাপটি একটি হাঁস খেয়ে খোপেই অবস্থান করছি। পরে ভিটিআরটি ও ওয়াইল্ড টিমের সদস্য অজগরটি ধরে ভোলা টহল ফাঁড়ির বনরক্ষীদের কাছে হস্তান্তর করেন।

পূর্ব সুন্দরবনের শরণখোলা স্টেশন কর্মকর্তা (এসও) আসাদুজ্জামান জানান, হরিণটি সুন্দরবনের ঢালিরঘোপ এলাকা থেকে দিনের কোনো এক সময় ভোলা নদী সাঁতরে পাশের গ্রামে ঢুকে পড়ে। বিকেলে লোকজন দেখে স্থানীয় বনসুরক্ষা কমিটির সদস্যদের খবর দিলে তারা সেটি উদ্ধার করেন।

এসও আসাদুজ্জামান জানান, হরিণটির পেটে বাচ্চা আছে। তাই ধাওয়া খেয়ে কিছুটা ক্লান্ত। তার বাম চোখে সামান্য আঘাতের চিহ্ন আছে। অসুস্থ হরিণটি রেঞ্জ অফিসে রাখা হয়েছে। উপজেলা প্রাণি সম্পদ বিভাগের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়া সকালে উদ্ধার হওয়া অজগরটিও ভোলা ক্যাম্পের বনে অবমুক্ত করা হয়েছে। অজগরটি ৯ ফুট লম্বা এবং প্রায় ১২ ওজন বলে জানান বন বিভাগের এই কর্মকর্তা।

Related Posts