মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, সন্ধ্যা ৬:১১
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২,সন্ধ্যা ৬:১১

আমড়াগাছিয়া বাজারে অগ্নিকাণ্ড, ৯ দোকান পুড়ে ছাই

হায়াতুজ্জামান মিরাজ,আমতলী (বরগুনা)

৬ জুলাই, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৫:৩১ pm

বরগুনার আমতলীর আমরাগাছিয়া বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৯টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট আড়াই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

আজ বুধবার (৬ জরলাই) সকাল ৯টার দিকে আমরাগাছিয়া বাজারের আল-আমিনের তেল ও পেট্রোলের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে স্থানীয়রা নিশ্চিত করেছেন।
আগুন দ্রুত পাশের একটি চালের গুদামসহ আশপাশের দোকানে ছড়িয়ে পরে। এতে ৯টি দোকান পুড়ে প্রাথমিকভাবে আড়াই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্থ ব্যাবসায়িরা।

ক্ষতিগ্রস্থ ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায়ী রাজিব হোসেন বলেন,’আমার দোকানের সবকিছু পুড়ে গেছে।আমি নিঃস্ব হয়ে গেছি। আমার লাখ লাখ টাকার কিস্তি কিভাবে দিমু। আমার সংসার আমি কিভাবে চালামু।’

অপর ক্ষতিগ্রস্থ চালের দোকানী বলেন,’আমার সব পুঁজি দিয়ে আমি দোকান করেছি। আমি এখন কিভাবে পরিবার পরিজন নিয়ে খামু – চলমু। আমার এখন কি হবে।’

ক্ষতিগ্রস্থ দোকান ও ঘর মালিকদের দাবি আগুনে তাদের প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকার-ক্ষতি হয়েছে।

আমতলী ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা মুঠোফোনে বলেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে। বরগুনা, আমতলী ও পটুয়াখালী ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট আড়াই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। অগ্নিকান্ডে মোট ৯টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে গেছে বলে জানান তিনি।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) একেএম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ এবং কুকুয়া ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন আহমেদ মাসুম তালুকদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন।

 

Related Posts

আমড়াগাছিয়া বাজারে অগ্নিকাণ্ড, ৯ দোকান পুড়ে ছাই

হায়াতুজ্জামান মিরাজ,আমতলী (বরগুনা)

৬ জুলাই, ২০২২,

৫:৩১ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

বরগুনার আমতলীর আমরাগাছিয়া বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৯টি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট আড়াই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

আজ বুধবার (৬ জরলাই) সকাল ৯টার দিকে আমরাগাছিয়া বাজারের আল-আমিনের তেল ও পেট্রোলের দোকান থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে স্থানীয়রা নিশ্চিত করেছেন।
আগুন দ্রুত পাশের একটি চালের গুদামসহ আশপাশের দোকানে ছড়িয়ে পরে। এতে ৯টি দোকান পুড়ে প্রাথমিকভাবে আড়াই কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্থ ব্যাবসায়িরা।

ক্ষতিগ্রস্থ ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায়ী রাজিব হোসেন বলেন,’আমার দোকানের সবকিছু পুড়ে গেছে।আমি নিঃস্ব হয়ে গেছি। আমার লাখ লাখ টাকার কিস্তি কিভাবে দিমু। আমার সংসার আমি কিভাবে চালামু।’

অপর ক্ষতিগ্রস্থ চালের দোকানী বলেন,’আমার সব পুঁজি দিয়ে আমি দোকান করেছি। আমি এখন কিভাবে পরিবার পরিজন নিয়ে খামু – চলমু। আমার এখন কি হবে।’

ক্ষতিগ্রস্থ দোকান ও ঘর মালিকদের দাবি আগুনে তাদের প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকার-ক্ষতি হয়েছে।

আমতলী ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন ইনচার্জ গোলাম মোস্তফা মুঠোফোনে বলেন, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিটের মাধ্যমে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে। বরগুনা, আমতলী ও পটুয়াখালী ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট আড়াই ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। অগ্নিকান্ডে মোট ৯টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে গেছে বলে জানান তিনি।

আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) একেএম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ এবং কুকুয়া ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন আহমেদ মাসুম তালুকদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্থদের সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন।

 

Related Posts