শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২, রাত ৯:০১
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২,রাত ৯:০১

প্রান্তিক জনগণের স্বাস্থ্য সেবায় কাজ করছে যবিপ্রবি

২২ জুন, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৭:০১ pm

যবিপ্রবি প্রতিনিধি : সমাজের অনগ্রসর ও যথাযথ চিকিৎসা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আশপাশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রায় দেড় শতাধিক মানুষকে বিনামূল্যে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা দিয়েছে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। একইসঙ্গে রোগীদের বিনামূল্যে প্রয়োজনীয় ঔষধও দেওয়া হয়েছে।
আজ বুধবার সকালে যবিপ্রবির ডা. এম. আর. খান মেডিকেল সেন্টারে (যবিপ্রবি) ফিজিওথেরাপি অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন (পিটিআর) বিভাগ সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে এই ফ্রি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ক্যাম্পের আয়োজন করে। ফ্রি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ক্যাম্প উদ্বোধন করেন যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিওথেরাপি বিভাগ অত্যন্ত প্রান্তিক জনগণের জন্য, যারা ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা সেবা পায় না তাদের জন্য কাজ করছে। ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা শুধুমাত্র গরীব জনগণের জন্য নয়, ধনী-গরীব সকল মানুষের জন্যই একটি নির্দিষ্ট বয়সে গিয়ে প্রয়োজন। বিভিন্ন ধরনের শারীরিক সমস্যার যার জন্য ফিজিওথেরাপি প্রয়োজন সেগুলোর ক্ষেত্রে ফিজিওথেরাপিষ্ট থেকে চিকিৎসা ও পরামর্শ পেলে আর ঔষধ খেতে হয়না। বর্তমানে বিশ্বব্যপি ফিজিওথেরাপী একটি জরুরি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তিনি বলেন, আমার বিশ্বাস যবিপ্রবির এই বিভাগটি জনগণের আরও কাছে এসে তাদের সাহায্য করবে। এ ধরনের ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প ও ওয়ার্কশপের মাধ্যমে মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে পিটিআর বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. মো. ফিরোজ কবির বলেন, বিভাগটির মূল উদ্দেশ্য এই চিকিৎসা সেবা সাধারণ জনগণের দোরগোড়ায় নিয়ে যাওয়া। বাংলাদেশে ফিজিওথেরাপির গোড়াপত্তন শুরু হয় বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে। আমাদের এই বিভাগটিতে প্রথম হেল্থ ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয় ২০১৯ সালে। সামনের আগস্ট মাসে আরও একটি হেল্থ ক্যাম্প করার পরিকল্পনা রয়েছে। যবিপ্রবি ফিজিওথেরাপি বিভাগ শুধু যশোর অঞ্চলই নয়, দেশের অন্যান্য সকল জনগণের জন্য ব্যাথা, অক্ষমতা, আঘাতজনিত সমস্যার জন্য সেবা দিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিজ হাতে ফিজিওথেরাপি বিভাগটি চালু করেন। ১৯৭২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের অধীনে জাতীয় অর্থপেডিক ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোরে) ফিজিওথেরাপি বিভাগ চালু করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকদের রেজিস্ট্রেশন ও লাইসেন্স প্রদানের জন্য বাংলাদেশ রিহ্যাবিলিটেশন কাউন্সিল চালু করেন। আজকের ফ্রি হেল্থ ক্যাম্পে সেবা প্রদান করা হবে বাত ব্যাথা, প্যারালাইসিস ও প্রতিবন্ধি মানুষদের। বর্তমানে বিভাগটিতে ক্লিনিক্যাল সার্ভিস চালু আছে। যেখানে স্বল্পমূল্যে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এখানে সত্তর ঊর্ধ্ব বয়স্ক, মুক্তিযোদ্ধা ও গরীব অসহায়দের সম্পূর্ণ ফ্রি চিকিৎসা দেওয়া হয়। যশোর অঞ্চলের সর্ব সাধারণের জন্য বিভাগটি কাজ করে যাচ্ছে।
ফ্রি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ক্যাম্পে প্রায় ১২ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বাত ব্যাথা, পারালাইসিস, স্ট্রোক ও আঘাতজনিত সমস্যা, নিউরোলজিক্যাল সমস্যা, স্পোর্টস ইনজুরিসহ বিভিন্ন সেশনে প্রায় দেড় শতাধিক রোগী দেখেন।
উল্লেখ্য, এ ধরনের ফ্রি হেলথ ক্যাম্প ইতোপূর্বে বিভাগটি আয়োজন করে আসছে। সঠিক ও মানসম্মত ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা নিশ্চিত করায় এ বিভাগটির প্রধান উদ্দেশ্য। এছাড়াও বিভাগটিতে স্বল্পমূল্যে (ছুটির দিন ব্যতীত) যে কেউ চাইলে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা নিতে পারেন। সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত বিভাগটিতে নিয়মিত রোগী দেখা হয়। ফ্রি হেলথ ক্যাম্পটিতে সার্বিক সহযোগিতা করেন যবিপ্রবির স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন ‘সহায়ক’-এর কর্মীরাও বিভাগটির বিভিন্ন বর্ষের অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা।

Related Posts

প্রান্তিক জনগণের স্বাস্থ্য সেবায় কাজ করছে যবিপ্রবি

২২ জুন, ২০২২,

৭:০১ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
যবিপ্রবি প্রতিনিধি : সমাজের অনগ্রসর ও যথাযথ চিকিৎসা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আশপাশের বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রায় দেড় শতাধিক মানুষকে বিনামূল্যে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা দিয়েছে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। একইসঙ্গে রোগীদের বিনামূল্যে প্রয়োজনীয় ঔষধও দেওয়া হয়েছে।
আজ বুধবার সকালে যবিপ্রবির ডা. এম. আর. খান মেডিকেল সেন্টারে (যবিপ্রবি) ফিজিওথেরাপি অ্যান্ড রিহ্যাবিলিটেশন (পিটিআর) বিভাগ সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে এই ফ্রি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ক্যাম্পের আয়োজন করে। ফ্রি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ক্যাম্প উদ্বোধন করেন যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিজিওথেরাপি বিভাগ অত্যন্ত প্রান্তিক জনগণের জন্য, যারা ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা সেবা পায় না তাদের জন্য কাজ করছে। ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা শুধুমাত্র গরীব জনগণের জন্য নয়, ধনী-গরীব সকল মানুষের জন্যই একটি নির্দিষ্ট বয়সে গিয়ে প্রয়োজন। বিভিন্ন ধরনের শারীরিক সমস্যার যার জন্য ফিজিওথেরাপি প্রয়োজন সেগুলোর ক্ষেত্রে ফিজিওথেরাপিষ্ট থেকে চিকিৎসা ও পরামর্শ পেলে আর ঔষধ খেতে হয়না। বর্তমানে বিশ্বব্যপি ফিজিওথেরাপী একটি জরুরি বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তিনি বলেন, আমার বিশ্বাস যবিপ্রবির এই বিভাগটি জনগণের আরও কাছে এসে তাদের সাহায্য করবে। এ ধরনের ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্প ও ওয়ার্কশপের মাধ্যমে মানুষের সাহায্যে এগিয়ে আসবে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে পিটিআর বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. মো. ফিরোজ কবির বলেন, বিভাগটির মূল উদ্দেশ্য এই চিকিৎসা সেবা সাধারণ জনগণের দোরগোড়ায় নিয়ে যাওয়া। বাংলাদেশে ফিজিওথেরাপির গোড়াপত্তন শুরু হয় বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে। আমাদের এই বিভাগটিতে প্রথম হেল্থ ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয় ২০১৯ সালে। সামনের আগস্ট মাসে আরও একটি হেল্থ ক্যাম্প করার পরিকল্পনা রয়েছে। যবিপ্রবি ফিজিওথেরাপি বিভাগ শুধু যশোর অঞ্চলই নয়, দেশের অন্যান্য সকল জনগণের জন্য ব্যাথা, অক্ষমতা, আঘাতজনিত সমস্যার জন্য সেবা দিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিজ হাতে ফিজিওথেরাপি বিভাগটি চালু করেন। ১৯৭২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা অনুষদের অধীনে জাতীয় অর্থপেডিক ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠান (নিটোরে) ফিজিওথেরাপি বিভাগ চালু করেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল ফিজিওথেরাপি চিকিৎসকদের রেজিস্ট্রেশন ও লাইসেন্স প্রদানের জন্য বাংলাদেশ রিহ্যাবিলিটেশন কাউন্সিল চালু করেন। আজকের ফ্রি হেল্থ ক্যাম্পে সেবা প্রদান করা হবে বাত ব্যাথা, প্যারালাইসিস ও প্রতিবন্ধি মানুষদের। বর্তমানে বিভাগটিতে ক্লিনিক্যাল সার্ভিস চালু আছে। যেখানে স্বল্পমূল্যে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এখানে সত্তর ঊর্ধ্ব বয়স্ক, মুক্তিযোদ্ধা ও গরীব অসহায়দের সম্পূর্ণ ফ্রি চিকিৎসা দেওয়া হয়। যশোর অঞ্চলের সর্ব সাধারণের জন্য বিভাগটি কাজ করে যাচ্ছে।
ফ্রি ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ক্যাম্পে প্রায় ১২ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বাত ব্যাথা, পারালাইসিস, স্ট্রোক ও আঘাতজনিত সমস্যা, নিউরোলজিক্যাল সমস্যা, স্পোর্টস ইনজুরিসহ বিভিন্ন সেশনে প্রায় দেড় শতাধিক রোগী দেখেন।
উল্লেখ্য, এ ধরনের ফ্রি হেলথ ক্যাম্প ইতোপূর্বে বিভাগটি আয়োজন করে আসছে। সঠিক ও মানসম্মত ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা নিশ্চিত করায় এ বিভাগটির প্রধান উদ্দেশ্য। এছাড়াও বিভাগটিতে স্বল্পমূল্যে (ছুটির দিন ব্যতীত) যে কেউ চাইলে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা নিতে পারেন। সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত বিভাগটিতে নিয়মিত রোগী দেখা হয়। ফ্রি হেলথ ক্যাম্পটিতে সার্বিক সহযোগিতা করেন যবিপ্রবির স্বেচ্ছাসেবক সংগঠন ‘সহায়ক’-এর কর্মীরাও বিভাগটির বিভিন্ন বর্ষের অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা।

Related Posts