রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, সকাল ৯:৪৫
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২,সকাল ৯:৪৫

পুলিশের মামলায় আসামি ৩৪২ বিএনপির নেতাকর্মী, আটক ১৩

১৪ জুন, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

১০:০৩ pm

হায়াতুজ্জামান মিরাজ, আমতলী (বরগুনা) : বরগুনার আমতলীতে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ৩৪২ বিএনপি নেতাকর্মীদের আসামী করে সোমবার (১৩ জুন) রাতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় ৩২ জনের নাম উল্লেখ করা হলেও ৩১০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে।

এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে আটক ১৩ জন নেতাকর্মীকে আজ মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টার সময় আমতলী উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠন একেস্কুল চৌরাস্তা মোড় এলাকায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে। সভা শেষে বিএনপির নেতাকর্মীরা সড়কে বিক্ষোভ করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় পুলিশের সাথে বিএনপি নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বিএনপির ছোড়া ইটের আঘাতে এসআই দাদন মিয়া, এসআই শহীদুল আলম হাওলাদার, এএসআই কামালা উদ্দিন মিয়া, এএসআই সোহরাব, সিপাহি কবির খান আহত হন।

ওই হামলার ঘটনায় সোমবার রাতে আমতলী থানার এসআই ইউনুস আলী বাদী হয়ে বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন ফকির এবং সম্পাদক জহিরুল ইসলাম মামুন, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান হিরু, পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সামসুল হকসহ ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৩১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন ফকিরসহ ঘটনাস্থল থেকে আটক ১৩ নেতাকর্মীকে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার বাদী এসআই ইউনুস আলী বলেন, সড়ক অবরোধ করে বেআইনি সমাবেশ ও পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে বিএনপির ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৩১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করা হয়েছে।

আমতলী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম মামুন বলেন, পুলিশ বিনা কারণে আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে লাঠি চার্জ করেছে। এতে আমাদের ২০ থেকে ২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। উপজেলা সভাপতি ও পৌর কমিটির সাধারণ সম্পাদকসহ ১৩ জনকে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান বলেন, বেআইনি সমাবেশ করে সড়ক দখল ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় বিএনপির ৩২ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত ৩১০ জনকে আসামি করে সোমবার রাতে মামলা হয়েছে। আটক ১৩ নেতা-কর্মীকে আজ মঙ্গলবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Related Posts

পুলিশের মামলায় আসামি ৩৪২ বিএনপির নেতাকর্মী, আটক ১৩

১৪ জুন, ২০২২,

১০:০৩ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

হায়াতুজ্জামান মিরাজ, আমতলী (বরগুনা) : বরগুনার আমতলীতে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ৩৪২ বিএনপি নেতাকর্মীদের আসামী করে সোমবার (১৩ জুন) রাতে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলায় ৩২ জনের নাম উল্লেখ করা হলেও ৩১০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করা হয়েছে।

এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে আটক ১৩ জন নেতাকর্মীকে আজ মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টার সময় আমতলী উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠন একেস্কুল চৌরাস্তা মোড় এলাকায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে। সভা শেষে বিএনপির নেতাকর্মীরা সড়কে বিক্ষোভ করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় পুলিশের সাথে বিএনপি নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে বিএনপির ছোড়া ইটের আঘাতে এসআই দাদন মিয়া, এসআই শহীদুল আলম হাওলাদার, এএসআই কামালা উদ্দিন মিয়া, এএসআই সোহরাব, সিপাহি কবির খান আহত হন।

ওই হামলার ঘটনায় সোমবার রাতে আমতলী থানার এসআই ইউনুস আলী বাদী হয়ে বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন ফকির এবং সম্পাদক জহিরুল ইসলাম মামুন, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান হিরু, পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সামসুল হকসহ ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ৩১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় বিএনপির সভাপতি জালাল উদ্দিন ফকিরসহ ঘটনাস্থল থেকে আটক ১৩ নেতাকর্মীকে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার বাদী এসআই ইউনুস আলী বলেন, সড়ক অবরোধ করে বেআইনি সমাবেশ ও পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে বিএনপির ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৩১০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করা হয়েছে।

আমতলী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম মামুন বলেন, পুলিশ বিনা কারণে আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে লাঠি চার্জ করেছে। এতে আমাদের ২০ থেকে ২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। উপজেলা সভাপতি ও পৌর কমিটির সাধারণ সম্পাদকসহ ১৩ জনকে আটক করে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মিজানুর রহমান বলেন, বেআইনি সমাবেশ করে সড়ক দখল ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় বিএনপির ৩২ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত ৩১০ জনকে আসামি করে সোমবার রাতে মামলা হয়েছে। আটক ১৩ নেতা-কর্মীকে আজ মঙ্গলবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Related Posts