শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২, রাত ১১:০৪
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২,রাত ১১:০৪

ট্রলি চাপায় প্রাণ গেল এনজিও কর্মকর্তার

৯ জুন, ২০২২,

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

৯:২৪ pm

হায়াতুজ্জামান মিরাজ, আমতলী (বরগুনা) : বরগুনার আমতলী পৌরসভার ওয়াবদা ভেরীবাঁধ সড়কের আমতলী ফায়ার সার্ভিস অফিস সংলগ্ন স্থানে ট্রলির চাপায় বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান ব্যুরো বাংলাদেশ আমতলী শাখা ব্যাবস্থাপক আরিফুল ইসলাম (৩০) নিহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে।

আরিফুল ইসলাম ফরিদপুর সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর গ্রামের আলাউদ্দিন শেখের ছেলে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে আকন বাড়ির মধ্য থেকে রিমন আকনের মালিকাধীন একটি খালি ট্রলি (মালমাল টানা গাড়ি) সড়কে উঠছিল। এ সময় ওই সড়ক দিয়ে মোটরসাইকেলে যাওয়ার সময় ট্রলিটি আরিফুল ইসলামকে চাপা দেয়। স্থানীয়রা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় কিছুক্ষণ পরে হাসপাতালে মারা যান তিনি। পুলিশ হাসপাতাল থেকে নিহতের মরদেহ থানায় নিয়ে গেছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. কাঙ্খিতা মন্ডল তৃনা বলেন, হাসপাতালে আনার কিছুক্ষণ পরেই তার মৃত্যু হয়।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) রনজিৎ কুমার সরকার মুঠোফোনে বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের মরদেহ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। আইগত প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

Related Posts

ট্রলি চাপায় প্রাণ গেল এনজিও কর্মকর্তার

৯ জুন, ২০২২,

৯:২৪ pm

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp

হায়াতুজ্জামান মিরাজ, আমতলী (বরগুনা) : বরগুনার আমতলী পৌরসভার ওয়াবদা ভেরীবাঁধ সড়কের আমতলী ফায়ার সার্ভিস অফিস সংলগ্ন স্থানে ট্রলির চাপায় বেসরকারি আর্থিক প্রতিষ্ঠান ব্যুরো বাংলাদেশ আমতলী শাখা ব্যাবস্থাপক আরিফুল ইসলাম (৩০) নিহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে।

আরিফুল ইসলাম ফরিদপুর সদর উপজেলার কৃষ্ণনগর গ্রামের আলাউদ্দিন শেখের ছেলে।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার দিকে আকন বাড়ির মধ্য থেকে রিমন আকনের মালিকাধীন একটি খালি ট্রলি (মালমাল টানা গাড়ি) সড়কে উঠছিল। এ সময় ওই সড়ক দিয়ে মোটরসাইকেলে যাওয়ার সময় ট্রলিটি আরিফুল ইসলামকে চাপা দেয়। স্থানীয়রা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় কিছুক্ষণ পরে হাসপাতালে মারা যান তিনি। পুলিশ হাসপাতাল থেকে নিহতের মরদেহ থানায় নিয়ে গেছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. কাঙ্খিতা মন্ডল তৃনা বলেন, হাসপাতালে আনার কিছুক্ষণ পরেই তার মৃত্যু হয়।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) রনজিৎ কুমার সরকার মুঠোফোনে বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের মরদেহ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। আইগত প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

Related Posts